স্পর্শ অনুভূতি সম্পন্ন রোবট

কেমন হবে যদি রোবটেরও মানুষের মতো স্পর্শ অনুভব করার স্নায়বিক অনুভূতি থাকে? ব্যাপারটি খুবই মজার হবে, তাই না? সম্প্রতি রোবটের জন্য এমনকিছুই উদ্ভাবন করতে চলেছেন একদল বিজ্ঞানী।

নতুন গবেষণা থেকে জানা যায়, রোবটের কৃত্তিম ত্বক তৈরিতে ব্যবহৃত হতে পারে, রাবারের তৈরি ইলেক্ট্রনিক্স এবং সেন্সর যা ৫০ ভাগ প্রসারিত করার পরও কাজ করতে পারে। গবেষকরা বলেন, এটি একটি নির্দিষ্ট সীমা পর্যন্ত নমনীয়তার অনুভূতি দিতে পারে।

 

গবেষকদের মতে, মানুষের ত্বকের মতোই বস্তুও তাপ, চাপ এবং সম্প্রসারণের অনুভূতি সম্পন্ন হতে পারে। হিউস্টন ইউনিভার্সিটির মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কুঞ্জিয়াং ইয় বলেন, এটি একটি রাবারের টুকরা, কিন্তু এতে সার্কিট এবং সেন্সরের কাজ রয়েছে। ইয় এবং তাঁর দল, তাঁদের গবেষণা সম্পর্কে জার্নাল সাইন্স এডভাঞ্চেস এ সেপ্টেম্বরের ৮ তারিখে একটি স্টাডি পাবলিশ করেছেন।

ইয় বলেন, রাবার ইলেক্ট্রনিক্স এবং সেন্সরের কাজ করার একটি বিস্তৃত সীমা রয়েছে। বায়োমেডিকেলের বিভিন্ন ক্ষেত্রে এর ব্যাবহার রয়েছে।

 

ইয় আরও বলেন, এটি রোবটদের জন্য বেশী মজাদার জিনিস হতে পারে। যেহেতু মানুষ রোবটদের পাশে নিয়ে কাজ করতে চায়, তাই ব্যাপারটিকে নিরাপদ রাখার জন্য রোবটদেরও তার পরিপার্শ্ব সম্পর্কে অনুভূতি থাকা প্রয়োজন।

ইয় এবং তাঁর সহকারীরা একটি পরীক্ষা করেছেন, যেখানে তারা একটি কাপে নির্দিষ্টভাবে গরম এবং ঠাণ্ডা পানির তাপমাত্রা পরিমাপ করেছেন একটি ইলেক্ট্রনিক স্কিন এর মাধ্যমে এবং কম্পিউটার সিগন্যালকে ট্রান্সলেট করেছেন রবোটিক হাতের আঙুলে।

 

তিনি বলেন, ইলেক্ট্রনিক্স এবং রোবটগুলো সাধারনত সীমাবদ্ধ থাকে শক্ত এবং অনমনীয় পদার্থ দ্বারা, যার মাধ্যমে তাঁদের কম্পিউটার সার্কিট তৈরি হয়ে থাকে তাই বেশীরভাগ ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসেরই সম্প্রসারিত হবার ক্ষমতা নেই।

বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় গবেষণাকেন্দ্রে, বিজ্ঞানিরা ফ্লেক্সিবল বা নমনীয় ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস তৈরি করার জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে যাচ্ছেন। কেও কেও এর জন্য পলিমার সেমিকন্ডাক্টর ব্যাবহার করছেন। বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে, এসব ম্যাটেরিয়াল তাদের কার্যকারিতার তুলনায় অনেক বেশী ব্যয়সাপেক্ষ।

 

সম্প্রতি গবেষকরা সফিস্টিকেটেড পলিমার ব্যাবহার করার বদলে কম ব্যয়সাপেক্ষ ম্যাটেরিয়াল ব্যাবহার করছেন। ইয় এবং তাঁর সহকারীরা ক্ষুদ্র সেমিকন্ডাক্টিং ন্যনোফাইব্রিল (ন্যনোওয়্যার- যা মানুষের চুল থেকে ১০০০ ভাগ ছোট) সিলিকন বেসড অরগানিক সলিউশন বা দ্রবণের সাথে মিশিয়ে একটি সম্প্রসারণযোগ্য পদার্থ তৈরি করেছেন। যাকে পলিডাইমিথাইলসিলক্সেন বা সংক্ষেপে পিডিএমএস বলা হয়।

 

৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় দ্রবণটি কিছুটা শক্ত হয় এবং সম্প্রসারণযোগ্য পদার্থে পরিণত হয় যা লক্ষ লক্ষ ক্ষুদ্র ন্যনোওয়্যারের কারেন্ট সিগন্যাল পাস করতে পারে।

ইয় এবং তাঁর সহকারীরা এটি নিয়ে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন এবং তারা আশাবাদি যে ভবিষ্যতে তাঁরা আরও উন্নত এবং গ্রহণযোগ্য করে তুলে ধরতে পারবেন।

ইয় বলেন, এটি স্ট্রেচেবল বা সম্প্রসারণযোগ্য ইলেক্ট্রনিক্স এর ক্ষেত্রকে বদলে দেবে।

Facebook Comments

লেখক সম্পর্কে কিছু তথ্য

রাজমনি পাল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে (অনার্স) অধ্যায়নরত একজন শিক্ষার্থী।তিনি কিউরিয়াস সেভেনের জন্য নিয়মিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক আটিকেল লিখেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 2 = 4