আইবিএম প্রকাশ করলো পাঁচটি উদ্ভাবন যা পরবর্তী পাঁচ বছরে আমাদের জীবনযাপনকে বদলে দিতে পারে

সম্প্রতি বহুজাতিক কারিগরি প্রতিষ্ঠান আই.বি.এম. পাঁচ পাঁচটি নতুন প্রযুক্তির কথা উল্লেখ করেছে, যা তারা পরবর্তীতে উদ্ভাবন করবেন বলে পরিকল্পনা করেছেন। তালিকায় প্রকাশিত এই পাঁচটি টেকনোলজি আগামী পাঁচ বছরের মাঝে মানুষের কাজকর্মে এবং জীবনযাপনে ব্যাপক পরিবর্তন আনতে সক্ষম হবে। এগুলো কম্পানীটির পঞ্চম বার্ষিকী তালিকায় প্রকাশিত হয়েছে।

হলোগ্রাফিক চ্যাট (ওরফে 3D Telepresence)

আই.বি.এম. এর ভবিষ্যৎবাদীরা বলেন, থ্রিডি ক্যামেরার সাম্প্রতিক উন্নতির ফলে মানুষের ঘরে ঘরে হলোগ্রাফিক চ্যাটের সুবিধা পৌঁছে দেয়া খুব বেশী কষ্টসাধ্য বা অসম্ভব ব্যাপার নয়। সম্প্রতি অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এমন একটি সিস্টেম তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন যা কাছাকাছি পার্শ্ববর্তী স্থানে সঠিক সময়ের মাঝে হলোগ্রাফিক ছবি পাঠাতে সক্ষম। বিজ্ঞানীরা ভবিষ্যতবাণী করেন যে, থ্রিডি ভিুয়ালাইজেশনের মাধ্যমে কম্পিউটারের ভেতরে আমরা প্রবেশ করতে পারবো ফলে বর্তমানে যা আমরা টু ডায়মেনশনে দেখি তা থ্রি ডায়মেনশনে দেখবো।

Businessman holding an hologram in his hand
Businessman holding an hologram in his hand

বায়ু চালিত ব্যাটারি

বর্তমানে লিথিয়াম যুক্ত বায়ুচালিত ব্যাটারী গবেষনাধীন রয়েছে এবং এর উন্নয়ন কার্যক্রম এখনো চলছে। আইবিএম বিশ্বাস করে যে, অদূর ভবিষ্যতে এমন ব্যাটারী তৈরী করা সম্ভব হবে যা আমরা শ্বাস-প্রশ্বাসে যে বায়ু ব্যাবহার করি ঠিক সেই বায়ূই ব্যবহার করবে ভারী ধাতুর সাথে ধাতুর ক্রিয়া করে শক্তি উৎপাদন করতে। সেই ব্যাটারীগুলো হবে যথেষ্ট ছোট এবং হালকা। এমনকি এটি আজকালের ব্যবহৃত লিথিয়াম ব্যাটারী থেকে দশগুণ বেশী স্থায়ী হবে।
2

বিজ্ঞানীদের সকল তথ্য সংগ্রহ করার জন্য ব্যক্তিগত সেন্সর

বর্তমানে প্রায় সকল বৈজ্ঞানিক তথ্যই বিজ্ঞানীদের সংগ্রহে রাখা আবশ্যক। এধরনের তথ্য সংগ্রহে রাখার জন্য তারা বিভিন্ন ধরনের ডিভাইস তৈরী করেছেন। আইবিএম কোম্পানীটি আাশা করছে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে এধরনের সব তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব হবে এবং এগুলোকে সেন্সরের মাধ্যমে সেলফোনে, গাড়িতে, কম্পিউটারে এবং বিভিন্ন স্থানে পৌঁছে দেয়া সম্ভব হবে। গবেষকরাও এই সেন্সর ব্যবহার করতে পারেন বড় ডাটা সংরক্ষণের ক্ষেত্রে। এর জলবায়ূ মোকাবেলা থেকে শুরু করে অন্য প্রজাতির অস্তিত্ব এবং তাদের আক্রমন বা কার্যক্রম সম্পর্কেও জানা জেতে পারে।
3

ড্রাইভারদের জন্য স্মার্ট কম্পিউটার সিস্টেম

আইবিএম বিশ্বাস করে যে, ট্রাফিক শর্ত, রাস্তা নির্মাণ এবং অন্যান্য বিষয়ের উপর যা আমাদের যাতায়াতকে নিয়ন্ত্রন করতে পারে, তার উপর একটি ননস্টপ প্রবাহের মাধ্যমে অদূর ভবিষ্যতে বিভিন্ন তথ্যসূত্র আদান-প্রদান করা হবে।একজন ব্যক্তি যদি এ বিন্দু থেকে বি বিন্দুতে ভ্রমণ করতে চায় তাহলে কম্পিউটার শুধু সর্বোত্তম পথই দেখিয়ে দেবে না বরং আর কি কি উপায়ে সেদিন ওই পথে যাওয়া যায় তাও বলে দেবে। এটি গাণিতিক মডেল এবং আনুমানিক বিশ্লেষণ ব্যবহার করে ড্রাইভারদের সম্পুর্ণ তথ্য দিয়ে সাহায্য করবে।

smart-driver-updater-02-700x523

 

কম্পিউটারের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা

সর্বশেষ হিসেব অনুযায়ী, শক্তির প্রায় 50 শতাংশ তথ্যকেন্দ্রে ক্ষয়প্রাপ্ত হয়, যা কম্পিউটার প্রসেসর শীতল করতে ব্যায় হয় এবং নির্গত গরম বাতাসের বড় একটি অংশ বাতাসের সাথে মিশে যায়।  আইবিএম বিবেচনা করে যে, এই তাপ সংগ্রহ করে ভবনের বিভিন্ন অংশ উষ্ণ করতে ব্যবহার করা যেতে পারে এছাড়া জল সহ বিভিন্ন বস্তু গরম করতে এটি ব্যবহার করা যায়, এমনকি বিদ্যুতেও রূপান্তরিত রূপান্তরিত করা যেতে পারে।

lhc-cms-detector-640x353

Facebook Comments

লেখক সম্পর্কে কিছু তথ্য

রাজমনি পাল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে (অনার্স) অধ্যায়নরত একজন শিক্ষার্থী।তিনি কিউরিয়াস সেভেনের জন্য নিয়মিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক আটিকেল লিখেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

56 − 51 =