পেঙ্গুইন পদার্থবিদ্যা: একজন পলিমার পদার্থবিদ পেঙ্গুইনদের সম্পর্কে নতুন ধারণা দিয়ে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনেন

PeterBarham1024x576এই মাসে পদার্থবিদ্যা বিশ্বে পলিমার পদার্থবিদ পিটার বারহাম পেঙ্গুইনদের দলে হঠাৎ হানা দেয়ার কথা বর্ণনা করেন। পেঙ্গুইনদের সনাক্ত করতে তার দৃষ্টিভঙ্গি এই প্রাণীগুলো সম্পর্কে অনেক অজানা ধারনা দিয়েছে এবং জানা ধারণাগুলো বদলে দিয়েছে। পেঙ্গুইনদের জটিল জীবনচক্র, কর্মতৎপর প্রকৃতি, এবং বড় কলোনিতে বসবাস করার অভ্যেসের ফলে এদের জীবন নিয়ে গবেষণা করা খুব একটা সহজ ব্যাপার নয়। যাই হোক,  দেখা যায় যে, একজন পলিমার পদার্থবিদ হিসেবে তিনি যেসব পাখি উড়তে পারে না তাদের পর্যবেক্ষণের বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির যথেষ্ট বৈপ্লবিক পরিবর্তন নিয়ে আসেন।

 

সাধারণত ধাতুর ব্যান্ড পেঙ্গুইনদের ফ্লিপারের (কিছু কিছু সামুদ্রিক প্রাণীর সন্তরণ-সহায়ক অঙ্গ) সাথে সংযুক্ত করে পেঙ্গুইনদের অনুসরণ করা হয়, মজার ব্যাপার হলো এটা পরীক্ষামূলকভাবে প্রমাণিত যে এই ব্যান্ডগুলো পেঙ্গুইনদের দৈনন্দিন কার্যক্রমকে আরো সক্রিয় করে। পিটার বারহাম এমন একটি উপাদান খুঁজেছেন যা এর থেকে ভালো কাজ করবে।

 

এই ক্ষেত্রে বারহাম এখন একজন সক্রিয় অংশদাতা। তিনি ব্রিস্টলে অনুষ্ঠিত অষ্টম আন্তর্জাতিক পেঙ্গুইন সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেছেন এবং কেপ টাউনে নবম আন্তর্জাতিক পেঙ্গুইন কংগ্রেস সংগঠিত করতে সাহায্য করছেন। বারহাম বলেন, ”যদিও আমি নিজেকে একজন ফিজিসিস্ট হিসেবে দাবি করি কিন্তু এটাও সত্যি যে আমি সত্যিকার অর্থে একজন পেংগুইন জীববিজ্ঞানী হিসেবেও স্বীকৃত হয়েছি।”

african_penguin

বিভিন্ন ধরণের এবং বিভিন্ন উপকরণ থেকে তৈরী ফ্লিপার ব্যান্ড পরীক্ষা করার জন্য বারহাম গোড়া থেকে পরিকল্পনা করেছেন এবং উপকরণগুলোকে উন্নত করেছেন। তার ডিজাইনগুলো ব্রিস্টল চিড়িয়াখানায় পরীক্ষা করা হয়েছিল। তার গবেষণা থেকে পেঙ্গুইনদের আচরণ থেকে বহু অজানা তথ্য জানা যায়, এর মধ্যে একটি অজানা তথ্য হলো, হস্তপালিত পেঙ্গুইনরা প্রাকৃতিকভাবে পালিত পেঙ্গুইনদের থেকে বেশিদিন বাঁচে। পেঙ্গুইনদের সাথে তার ঘনিষ্ট কাজ পেঙ্গুইনদের সনাক্তকরণের ব্যাপারে নতুন ধারণা দেয়।

 

তিনি তার গবেষণা থেকে উপলব্ধি করেছেন যে, আফ্রিকান পেঙ্গুইনদের বুকে একটি আলাদা চিহ্ন রয়েছে এবং একদল কম্পিউটার সাইন্টিস্টদের সাথে মিলে তিনি একটি সফটওয়্যার তৈরী করেছেন যা আফ্রিকান পেঙ্গুইনদের ছবি বা ভিডিও দেখে তাদের সনাক্ত করতে পারে। এই সফটওয়্যার ব্যাবহার করার ফলে এখন আর পেঙ্গুইনদের খুঁজে খুঁজে বের করতে হয় না যার ফলে সময়, সম্পদ, এবং পাখিদের উপর চাপ সবই কমে আসে। বারহামের টিম একটি সরঞ্জাম তৈরী করেছেন যার মাধ্যমে পেঙ্গুইনদের ভর এবং ওজন মাপা যায়, যেই সময়ে তারা বাসস্থানে আসা যাওয়া করে। তাদের দলটি আরো বিভিন্ন ধরণের তথ্য সংগ্রহ করে। যেমন, পিত-মাতা পেঙ্গুইনদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক, তাদের সন্তান লালন পালনের দক্ষতা, ইত্যাদি।

 

একজন পদার্থবিদ হয়েও তিনি পেংগুইন জীববিজ্ঞানী হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন এবং এই ক্ষেত্রে যথেষ্ট অবদান রেখেছেন, অদূর ভবিষ্যতে হয়তো এই ক্ষেত্রে তাঁর আরো বিস্তৃত অবদান আমরা দেখতে পারবো।

Facebook Comments

লেখক সম্পর্কে কিছু তথ্য

রাজমনি পাল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে (অনার্স) অধ্যায়নরত একজন শিক্ষার্থী।তিনি কিউরিয়াস সেভেনের জন্য নিয়মিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক আটিকেল লিখেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

68 + = 72